‘চিৎকার করে ইউনূস গ্রামীণ ব্যাংক দখল করতে পারবেন না’


muhith-150x150আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, যতোই চিৎকার করেন না কেন, ইউনূস সাহেব গ্রামীণ ব্যাংক দখল করতে পারবেন না। সচিবালয়ে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি ও সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি’র বৈঠকের পর গ্রামীণ ব্যাংক ও ড. ইউনুস সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন। সরকার গ্রামীণ ব্যাংককে ভেঙে ফেলতে চাইছে- মুহাম্মদ ইউনূসের এমন অভিযোগের বিষয়ে মুহিত বলেন, তিনি অনবরত প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন কি উদ্দেশ্যে। অর্থমন্ত্রী বলেন, সরকারের মেজরিটি শেয়ারের দরকার হয় না। এটা সরকার কর্তৃক স্ট্যাটিউটরি বডি দ্বারা গঠিত। যতই চিৎকার করুন না কেন ইউনূস সাহেব, উনি আর এটা দখল করতে পারবেন না, কোন দিনই পারবেন না। এটা তাকে স্বীকার করতে হবে, স্বীকার করতে পারছেন না বলেই এতো সমস্যা। তিনি বলেন, গ্রামীণ ব্যাংক সম্পর্কে সরকার তিনটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রথমত, গ্রামীণ ব্যাংকে সরকারের ২৫ শতাংশ শেয়ার থাকবে; দ্বিতীয়ত গ্রামীণ ব্যাংকীণ ব্যাংক এতদিন যেভাবে চলে এসেছে সেভাবেই চলবে, শাখাগুলো যেভাবে কাজ করছে সেভাবেই কাজ করবে; তৃতীয়ত, গ্রামীণ ব্যাংকের পরিচালক নিয়োগের কোন বিধিমালা নেই। সরকার এই বিধিমালাগুলো প্রণয়ন করে দিয়ে যাবে। গ্রামীণ ব্যাংক কমিশনের পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন কবে দেয়া হবে জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, আগামী সপ্তাহেই এ প্রতিবেদন পাওয়া যাবে বলে আশা করছেন তিনি। এক প্রশ্নের জবাবে মুহিত বলেন, গ্রামীণ ব্যাংক পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান খোন্দকার মোজাম্মেল হক পদত্যাগ করায় নতুন চেয়ারম্যান খোঁজা হচ্ছে। তবে যতোদিন নতুন চেয়ারম্যান পাওয়া যাচ্ছে না মোজাম্মেল হকই ততদিন দায়িত্ব চালিয়ে নেবেন বলে জানিয়েছেন।

Advertisements