তোবা শ্রমিকদের রাস্তা অবরোধ


 

58771_2-1

তোবা গ্রুপের শ্রমিকদের বেতনভাতাদি অবিলম্বে পরিশোধ না করা হলে সারা দেশে গার্মেন্টশ্রমিকদের বিক্ষোভ ছড়িয়ে দেয়া হবে। এ জন্য তোবা গ্রুপের শ্রমিকদের দাবি মেনে নেয়ার আহ্বান জানান নেতৃবৃন্দ। এ দিকে তোবা গ্রুপের শ্রমিকদের তিন মাসের বকেয়া বেতন-ওভারটাইম ও ঈদবোনাসের টাকা আজকের মধ্যে পরিশোধ না করলে আগামীকাল সোমবার শ্রম মন্ত্রণালয়ের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচির ঘোষণা করেছে গণতান্ত্রিক বাম মোর্চা। বেতন-বোনাস না পেয়ে অনশনরত শ্রমিকেরা গতকাল দুই ঘণ্টা রাস্তা অবরোধ করে রাখেন।
গতকাল রাজধানীর বাড্ডায় হোসেন মার্কেটের সামনে তোবা গ্রুপ শ্রমিক সংগ্রাম কমিটির বিােভ সমাবেশে শ্রমিক নেতারা এ মন্তব্য করেন।
অবিলম্বে তোবা গ্রুপের এক হাজার ৬০০ শ্রমিকের বকেয়া বেতন-ওভারটাইম-বোনাস সম্পূর্ণরূপে পরিশোধ, খুনি মালিক দেলোয়ারের জামিন বাতিল ও সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করাসহ পাঁচ দফা দাবিতে গতকাল ওই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বেলা ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। একই দাবিতে শ্রমিকনেত্রী মোশরেফা মিশুর নেতৃত্বে তোবা গ্রুপের গার্মেন্টশ্রমিকেরা আমরণ অনশন করছেন। আন্দোলনরত শ্রমিকেরা জানিয়েছেন, ছয় দিন ধরে শ্রমিকেরা অনশন করছেন, এর মধ্যে ৯১ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন, ১১ জন শ্রমিক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।
এ দিকে পুলিশের বাধা অতিক্রম করে গতকাল বাড্ডা-রামপুরা সড়কে শ্রমিকদের মিছিল নামলে পুলিশের আক্রমণে আহত হন সংগ্রাম কমিটির সংগঠক শহীদুল ইসলাম সবুজ, মনিরুজ্জামান মাসুম, জলি তালুকদার, ফখরুদ্দিন কবির আতিকসহ কয়েকজন শ্রমিক। বিােভ মিছিল শেষে তোবা গ্রুপের শ্রমিক নেতা মোহাম্মদ মিরাজের সভাপতিত্বে এবং গার্মেন্ট শ্রমিক ঐক্য ফোরামের কেন্দ্রীয় নেতা শহীদুল ইসলাম সবুজের সঞ্চালনায় এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পুরো সমাবেশ পুলিশ জলকামান দিয়ে ঘিরে রাখে। প্রায় তিন ঘণ্টা বাড্ডা-রামপুরা সড়কটি বন্ধ রাখেন আন্দোলনরত শ্রমিকেরা।
সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে তোবা গ্রুপের পাঁচটি কারখানার এক হাজার ৬০০ শ্রমিকের সব পাওনা পরিশোধের দাবি জানিয়ে বলেন, দাবি মানা না হলে আরো কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে। তোবা গ্রুপের শ্রমিকদের জিম্মি করে খুনি মালিক দেলোয়ার হোসেনকে জামিন দেয়ার তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে তার জামিন বাতিল করে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানান।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, তেল-গ্যাস বিদ্যুৎ বন্দর রা জাতীয় কমিটির সদস্যসচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, বাম মোর্চার কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক ও বাসদ কনভেনশন প্রস্তুতি কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য শুভ্রাংশু চক্রবর্তী, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সাত্তার, গণসংহতি আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক ফিরোজ আহমেদ, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি অ্যাডভোকেট মন্টু ঘোষ, গার্মেন্ট শ্রমিক মুক্তি আন্দোলনের সভাপতি শবনম হাফিজ, গার্মেন্ট শ্রমিক ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, গার্মেন্ট শ্রমিক ঐক্য ফোরামের সহসাধারণ সম্পাদক আমেনা আক্তার, বাংলাদেশ শ্রমিক-কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি জহিরুল ইসলাম, বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতির সভাপতি তাসলিমা আক্তার, বিপ্লবী গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতির মোফাজ্জল হোসেন মোস্তাক, সমন্বিত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি রফিকুল ইসলাম পথিক, টেক্সটাইল ওয়ার্কার্স ফেডারেশনের সভাপতি মাহবুবুর রহমান ইসমাইল, গার্মেন্টস মজদুর ইউনিয়নের আহ্বায়ক সুমন মল্লিক, গণমুক্তির গানের দলের সাধারণ সম্পাদক আশীষ কোড়ায়া। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন সিপিবি নেতা হায়দার আকবর খান রনোসহ জোনায়েদ সাকি, সাজ্জাদ জহির চন্দন, ক্বাফি রতন। সংহতি জানিয়েছেÑ বাংলাদেশ কৃষক সমিতি, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন, সাম্রাজ্যবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্য, নির্বাণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, অ্যাকটিভিস্ট নৃবিজ্ঞানী, ছাত্র গণমঞ্চ, সর্বস্তরের ছাত্র-শিক-শ্রমিক-কৃষক পেশাজীবী জনতা, জাতীয় গণতান্ত্রিক গণমঞ্চ, রিহাফ, রিকশা ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়ন, বস্তিবাসী ইউনিয়ন।
এ দিকে তোবা গ্রুপের শ্রমিকদের তিন মাসের বকেয়া বেতন-ওভারটাইম ও ঈদবোনাসের টাকা আগামীকালের মধ্যে পরিশোধ না করলে আগামীকাল সোমবার শ্রম মন্ত্রণালয়ের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে গণতান্ত্রিক বাম মোর্চা। আমরণ অনশনরত তোবা গ্রুপের শ্রমিকদের বকেয়া পাওনা অবিলম্বে পরিশোধের দাবিতে এবং শ্রমিকদের সাথে সংহতি প্রকাশ করে গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার উদ্যোগে গতকাল বিকেলে জাতীয় প্রেস কাবের সামনে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল থেকে এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। বাম মোর্চার সমন্বয়ক শুভ্রাংশু চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মোর্চার কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সাইফুল হক, জোনায়েদ সাকী, অধ্যাপক আবদুস সাত্তার, হামিদুল হক, শহীদুল ইসলাম সবুজ প্রমুখ। সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল পল্টন এলাকা প্রদক্ষিণ করে। সমাবেশে নেতৃবৃন্দ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, অবিলম্বে শ্রমিকদের দাবি না মানলে সারা দেশের গার্মেন্টশ্রমিকদের মধ্যে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়বে। তারা আরো দাবি জানান, তাজরীন ফ্যাশন্সে ১১৩ শ্রমিক পুড়ে মরার জন্য দায়ী তোবা গ্রুপের মালিক দেলোয়ারের জামিন বাতিল করে তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

 

Advertisements